Loading
ইইউ পার্লামেন্ট ভোটে সমর্থন বেড়েছে উদারবাদের
Bangladesh News24
Mon, 27 May 2019 06:07

ইইউ পার্লামেন্ট ভোটে সমর্থন বেড়েছে উদারবাদের

Bangladesh News24
Mon, 27 May 2019 06:07

ইইউ পার্লামেন্ট ভোটে সমর্থন বেড়েছে উদারবাদের

আগামী পাঁচ বছরের জন্য ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধিদের নির্বাচিত করতে ভোট দিয়েছে ইউরোপের ২৮টি দেশের প্রায় ৪০ কোটি জনগণ। গত ২৩ থেকে ২৬ মে অনুষ্ঠিত হওয়া এ নির্বাচনের ফলাফলে দো যায়, বিভিন্ন দেশে সং্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে মধ্য-ডান ও মধ্য-বামপন্থী দলগুলো। অন্যদিকে, সমর্থন বেড়েছে উদারপন্থী (লিবারেলস), পরিবেশবাদী ও তৃণমূল গণতন্ত্রের সপক্ষের দল গ্রিনস ও জাতীয়তাবাদী দলগুলোর।

বিশ্লেষকদের ধারণা, রক্ষণশীল ইউরোপিয়ান পিপল’স পার্টি (ইপিপি) সমাজতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক জোটের সঙ্গে ‘মহা জোট’ গঠন করতে যাচ্ছে। তবে লিবারেল ও পরিবেশবাদী সবুজ দলের সমর্থন ছাড়া তাদের পক্ষে ‘মহা জোট’ গঠন করা সম্ভব হবে না।

ব্রেক্সিট ছয় মাসের জন্য বিলম্বিত হওয়ায় এ বছরের ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নির্বাচনে অংশ নেয় ব্রিটেনও। নির্বাচনে নবগঠিত ব্রেক্সিট পার্টি বড় জয় পেয়েছে।

বিবিসির বরে বলা হয়েছে, এন পর্যন্ত ফলাফলের প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ী, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের মোট ৭৫১ আসনের মধ্যে ইপিপি ১৭৯টি আসন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। ২০১৪ সালে দলটি পেয়েছিল ২১৬টি আসন। অন্যদিকে আসন কমছে সামাজিক গণতান্ত্রিকদের জোটেরও। গতবার তারা ১৯১টি আসন পেলেও এবার তা ১৫০টিতে নেমে আসতে পারে।

এ ছাড়া গতবার ৫০টি আসন পাওয়া পরিবেশবাদী সবুজ দলের জোট এবার ৬৭টি পর্যন্ত আসনে জয়লাভ করতে পারে।

জার্মানিতে বড় দুই রক্ষণশীল দলেরই ভোট কমেছে। অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের ক্রিশ্চিয়ান গণতান্ত্রিক ধারার জোট এবার পেয়েছে ২৮ শতাংশ ভোট। গতবার যেটি ছিল ৩৫ শতাংশ। ভোট কমেছে সামাজিক গণতান্ত্রিক জোটেরও (সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন)। ২০১৪ সালে ২৭ শতাংশ ভোট পাওয়া জোটটি এবার পেয়েছে ১৫.৫ শতাংশ ভোট।

যুক্তরাজ্যে নাইজেল ফারাজের নেতৃত্বে ৩২ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছে নবগঠিত ব্রেক্সিট পার্টি। নির্বাচনে ভোট বেড়েছে লিবারেল ডেমোক্র্যাটদের। আর ভোট কমেছে কনজারভেটিভ ও লেবার পার্টির।

ফ্রান্সের চরম-ডানপন্থী লে পেনের ন্যাশনাল র‍্যালি পার্টি ও মধ্যপন্থী নেতা ইমানুয়েল ম্যাক্রোর দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। ম্যাক্রোর ২২.৫ শতাংশ ভোটের বিপরীতে ২৪ শতাংশ ভোট পেয়েছে লে পেনের দল।

হাঙ্গেরিতে অভিবাসনবিরোধী ফিদেস পার্টি ৫২ শতাংশ ভোট পেয়ে দেশের ২১টি আসনের মধ্যে ১৩টিতেই জয়লাভ করেছে।

স্পেনে ক্ষমতাসীন সমাজতান্ত্রিক দল (পিএসওই) ৩২.৮ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছে। দলটি ২০টি আসনে জয়লাভ করেছে।

গ্রিসে রক্ষণশীল দল নিউ ডেমোক্রেসি ৩৩.৫ শতাংশ ভোট পেয়ে হারিয়েছে ২০ শতাংশ ভোট পাওয়া ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সাইপ্রাসের সিরিজা দলকে।

এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোর ভোটাররা আবারও পাঁচ বছরের জন্য তাঁদের ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ৭৫১ প্রতিনিধিকে নির্বাচিত করছেন। নির্বাচিত সদস্যরা পরে ভোট দিয়ে পাঁচ বছরের জন্য ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করবেন।

এবারের নির্বাচনে রেকর্ড ৫০ শতাংশের বেশি ভোটার ভোট দিয়েছেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।